শায়খুল-ইসলাম-হযরত-আল্লামা-শাহ-আহমদ-শফী-900x450প্রস্তাবিত শিক্ষা আইন-২০১৬ ও শিক্ষানীতি-২০১০কে বিতর্কিত ও ধর্মহীন উল্লেখ করে অবিলম্বে বাতিল এবং ইসলামবিরোধী স্কুল পাঠ্যবই সংশোধনের দাবিতে আজ সোমবার দেশব্যাপী জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ।

দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কাছে হেফাজতের আমির শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফীর পক্ষে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এ সময় কেন্দ্রীয় ও চট্টগ্রাম মহানগর নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, যুগ্মমহাসচিব মাওলানা মঈনুদ্দিন রুহী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, অর্থসম্পাদক মাওলানা ইলিয়াস ওসমানী প্রমুখ।

অন্য দিকে ঢাকা মহানগরীর যুগ্ম সদস্যসচিব মাওলানা ফজলুল করীম কাসেমীর নেতৃত্বে মহানগর কমিটির দায়িত্বশীল নেতারা ঢাকা জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, মাওলানা ফখরুল ইসলাম, মাওলানা শরীফুল্লাহ, মাওলানা রবিউল ইসলাম, মাওলানা মাহমুদুল হাসান, মাওলানা ফয়সাল আহমদ, মাওলানা নূর মোহাম্মদ, মাওলানা রবিউল ইসলাম প্রমুখ।

স্মারকলিপিতে আল্লামা শফী বলেন, স্কুল-কলেজের বর্তমান ইসলামবিচ্ছিন্ন শিক্ষাব্যবস্থাকে আইনি ভিত্তিদান এবং কওমি মাদরাসাগুলোকে নিয়ন্ত্রণে নেয়ার অসৎ উদ্দেশ্যে প্রস্তাবিত শিক্ষা আইন-২০১৬ নামে একটি বিতর্কিত খসড়া আইন প্রকাশ করে তড়িঘড়ি পাস করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এসব কর্মকাণ্ড সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম নাগরিকদের ধর্মীয় বিশ্বাস ও নৈতিক আদর্শের বিরোধী। এতে বিতর্কিত ইসলামবিমুখ শিক্ষানীতি-২০১০ অনুসারে দেশের প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক স্তরের পাঠ্যপুস্তকগুলোতে ক্রমান্বয়ে ইসলামভাবাপন্ন পাঠগুলো বাতিল করে সেখানে উদ্দেশ্যমূলকভাবে হিন্দুত্ববাদ ও নাস্তিক্যবাদমূলক লেখা প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, স্কুল-কলেজে বিদ্যমান পাঠ্যবই বহাল থাকলে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম শুধু ঈমানহারা হয়ে গড়ে উঠবে না, বরং ইসলামবিদ্বেষী নাস্তিক্যবাদী ও হিন্দুত্ববাদী মানসিকতা নিয়ে বেড়ে উঠবে। ৯২ ভাগ মুসলিম জনসংখ্যা অধ্যুষিত বাংলাদেশে এটা কোনোভাবেই চলতে দেয়া যায় না। দেশের সম্মানিত ও দায়িত্বশীল উলামা-মাশায়েখ, স্কুল-কলেজ-মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষক ও বৃহত্তর তৌহিদী জনতা সরকার পরিচালিত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এসব ইসলামবিরোধী কর্মকাণ্ডে প্রচণ্ডভাবে ক্ষুব্ধ ও হতাশ। তাই অবিলম্বে স্কুল-কলেজের পাঠ্যপুস্তক থেকে ইসলামবিদ্বেষী নাস্তিক্যবাদ ও হিন্দুত্ববাদের বিষয়গুলো বাদ দিয়ে সেখানে বৃহৎ মুসলিম জনগোষ্ঠীর ধর্মীয় চিন্তা ও আদর্শের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ ইসলামি ভাবধারা এবং মুসলিম ইতিহাস-ঐতিহ্যের প্রতি উদ্দীপনামূলক রচনা, গল্প ও কবিতা আবার বহাল করার দাবি জানাচ্ছি। পাশাপাশি প্রতিটি ক্লাসে বাধ্যতামূলকভাবে মুসলিম ছাত্রছাত্রীদের জন্য হক্কানি উলামায়ে কেরামের তত্ত্বাবধানে ইসলাম শিক্ষার বই রচনা করে পাঠ্যসূচিভুক্ত করারও আমরা জোর দাবি জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করে আল্লামা শফী বলেন, আপনি বহুবার বলেছেন, কুরআন-সুন্নাহবিরোধী কোনো আইন পাস করা হবে না এবং মদিনা সনদ অনুযায়ী দেশ চালাবেন। এ বিষয়ে আপনি দায়িত্বশীল হিসেবে কার্যকর ভূমিকা পালন করবেন, আমরা এটাই আশা করি। বিজ্ঞপ্তি।

সূত্র: নয়াদিগন্ত

Advertisements