jinnat-ali_baghaউপজেলা নির্বাচনের দ্বিতীয় দফায় রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন জামায়াতের উপজেলা আমীর জিন্নাত আলী। রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় আওয়ামী লীগের নেতৃত্বের ১৪ দলের একক প্রার্থী ছিলেন আজিজুল আলম। অন্যদিকে জামাতের একক প্রার্থী ছিলেন জিন্নাত আলী। এ ছাড়াও এখানে বিএনপির প্রার্থী ছিলেন তিনজন। বিএনপি-জামাতের ভোট চারভাগ হওয়ার পরেও শেষ পর্যন্ত জয়লাভ করেছেন জামায়াতের প্রার্থী।

বাঘা উপজেলা বর্তমান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সংসদীয় এলাকা। ফলে উপজেলাটির প্রতি মিডিয়ার বিশেষ নজর ছিলো। এখানে ১৪ দলের প্রার্থী হেরেছেন বড় ব্যবধানে। জামায়াত এখানে ভোট পেয়েছে ৪৩ হাজার ৮৮২ টি। ১৪ দলের প্রার্থী পেয়েছেন ৩৫ হাজার ৯০৫ টি। বিএনপির তিন প্রার্থী মিলিয়ে পেয়েছেন আরো ১০ হাজার ভোট।

বাঘা উপজেলা পরিষদের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান জিন্নাত আলীর সঙ্গে আজ শুক্রবার কথা হয়েছে প্রিয়.কমের।


বাঘা উপজেলার নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান জিন্নাত আলী যা যা বললেন-

  • উপজেলা স্থানীয় পর্যায়ের নির্বাচন হওয়ায় লোকজনের মধ্যে উৎসাহ উদ্দীপনা বেশি।
  • গত জাতীয় নির্বাচনে জনগণ তাঁদের পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচিত করতে পারেনি। তাই এই নির্বাচনে জনগণ তাঁদের পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচিত করার সুযোগ পেয়েছে।
  • যেহেতু আমরা সংগঠন করি সেহেতু বলবো, জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ না নেওয়াই ঠিক ছিলো।
  • উপজেলা নির্বাচনও কোথাও কোথাও নিরপেক্ষতা হারাচ্ছে।
  • বর্তমান সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিলে ১৮ দলের জয়ের সম্ভাবনা ছিলো না।
  • সরকারও চাচ্ছে উপজেলায় ভালোভাবে নির্বাচন হয়ে যাক।
  • উপজেলা পরিষদের হাতে ক্ষমতা খুবই কম। তারপরেও চেষ্টা করবো মৌলিক সমস্যা ও চাহিদাগুলোর সমাধান করতে।
  • বাঘা উপজেলার মৌলিক সমস্যা বিদ্যুৎ।
  • পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এমপি শাহরিয়ার আলমের এলাকায় যতটা কাজ করার সুযোগ ছিলো তিনি ততটা কাজ করেননি।

অডিওতে শুনুন পুরো সাক্ষাৎকার
সাক্ষাৎকার নিয়েছেন প্রিয়.কমের জয়েন্ট নিউজ এডিটর মেহেবুব আলম বর্ণ

 

সূত্র: প্রিয় ডটকম, ২৮ ফেব্রুয়ারী ১৪

 

Advertisements