mars 02মঙ্গলগ্রহের উদ্দেশে চিরতরে পৃথিবী ত্যাগ অগস্ত্য যাত্রা ইসলামে হারাম বলে ফতোয়া দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সরকারি ফতোয়া কমিটি। খবর খালিজ টাইমস’র।

এ ধরণের যাত্রাকে উৎসাহিত করা কিংবা এর সাথে যুক্ত থাকাকেও হারাম বলে ঘোষণা করেছে আমিরাতের জেনারেল অথরিটি অব ইসলামিক অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড এনডাউমেন্টের অধীনস্ত ফতোয়া কমিটি।

মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে কমিটি বলেছে, ‘এ ধরনের অগস্ত্য যাত্রা জীবনের ওপর সত্যিকার অর্থেই ঝুঁকির সৃষ্টি করে। তাই ইসলামে এটা ন্যায়সঙ্গত হতে পারে না।’

‘এটা অসম্ভব নয় যে, যে ব্যক্তি মঙ্গলগ্রহের উদ্দেশে যাবেন তিনি আর ফিরে আসবেন না, তিনি বেঁচে না-ও থাকতে পারেন এবং তার মৃত্যুর ঝুঁকি রয়েছে’ মনে করে কমিটি।

কমিটি বলেছে, ‘যিনি এই বিপজ্জনক ভ্রমণের ইচ্ছা প্রকাশ করবেন তিনি সম্ভবত কোনো ন্যায়সঙ্গত কারণ ছাড়াই ধ্বংস হয়ে যাবেন। ফলে পরকালে তিনি আত্মহত্যার শাস্তি ভোগ করবেন।’

কমিটি বলেছে, সম্ভাব্য সব ধরনের বিপদ থেকে জীবনকে রক্ষা এবং একে নিরাপদে রাখা সব ধর্মেই স্বীকৃত।

পবিত্র কোরআনের সুরা আন নিসার ২৯ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে, ‘তোমরা আত্মহত্যা কিংবা অন্যদের হত্যা করো না। নিশ্চয়ই আল্লাহ তোমাদের প্রতি দয়ালু।’

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের এপ্রিলে ডাচ কোম্পানি ‘মার্স ওয়ান’ মঙ্গলগ্রহে বসবাসের জন্য স্বেচ্ছাসেবকদের নিকট থেকে আবেদন আহ্বান করে।

কিন্তু এখন পর্যন্ত মঙ্গলগ্রহ থেকে পৃথিবীতে ফিরে আসার কোনো প্রযুক্তি আবিস্কৃত হয়নি। ফলে কোনো ব্যক্তি মঙ্গলগ্রহে গেলে তিনি আর ফিরে আসতে পারবেন না।

২০২৩ সালে প্রথম মঙ্গলগ্রহে মানুষ পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্স ওয়ান। এরপর মঙ্গলগ্রহে স্থায়ী মানব বসতি তৈরির জন্য প্রতি দুবছর পরপর মানুষ পাঠানোর পরিকল্পনা করছে কোম্পানিটি।

ওই কোম্পানির আহ্বানে বলা হয়েছে, আবেদনকারীর বয়স হতে হবে ১৮ থেকে ৪০ বছর এবং তাকে সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে হবে।

আবেদনকারীকে ফি হিসেবে দিতে হয়েছে মাত্র ৩৮ ডলার। হাজার হাজার আবেদন জমা পড়েছে। এর  মধ্যে সৌদি আরব থেকে ৫০০ এবং অন্যান্য আরব দেশ থেকেও বেশ কিছু আবেদন জমা পড়েছে।

মঙ্গলগ্রহে মানব পাঠানোর প্রকল্পে খরচ ধরা হয়েছে ৬০০ কোটি ডলার। ফতোয়া কমিটির আশঙ্কা কেউ কেউ পরকালের শাস্তি থেকে রক্ষা পেতে মঙ্গলগ্রহে পাড়ি দিতে চায়।

এ প্রসঙ্গে কমিটি বলেছে, ‘এটা একটা চূড়ান্ত ভিত্তিহীন এবং অগ্রহনযোগ্য বিশ্বাস। সবকিছুর স্রষ্টা আল্লাহর নির্দেশের বাইরে একটি অণু পড়ে না।’

এ প্রসঙ্গে ইসলামি গবেষক ড. শেখ মোহাম্মদ আল আশমাওয়ি বলেন, এ নিয়ে কোনো বিতর্ক নেই। সুরা বাকারার ১৯৫ আয়াতে আল্লাহ বলেছেন, ‘নিজের হাতে নিজেকে ধ্বংসের মধ্যে নিক্ষেপ করো না।’

শেখ মোহাম্মদ ইইসুফ ইমাম বলেন, ‘মানুষের জীবন তার নিজের সম্পত্তি নয়। এটা আল্লাহর সৃষ্টি। কাজেই সব ধর্মে এবং আইনে আত্মহত্যা নিষিদ্ধ।’

সূত্র: আরটিএনএন

Advertisements