66809_1সম্প্রতি বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আল কায়েদার যে ধারণা এসেছে তা নাটকীয় এবং ভিডিওবার্তায় আল কায়েদা প্রধান আয়মান আল জাওয়াহিরির হুমকি পুরোপুরি সাজানো নাটক। সম্ভবত বিদেশি কোনো গোয়েন্দা সংস্থা এর সাথে জড়িত। আমি কারো নাম বলব না, আগামীতে এদের সবার নাম প্রকাশ পাবে।

জাতীয় নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক এম শহিদুজ্জামান সোমবার রাতে চ্যানেল আইয়ের ‘তৃতীয় মাত্রা’ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন। জিল্লুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন এবি নিউজের সম্পাদক সুভাষ সিংহ রায়।

এম শহিদুজ্জামান বলেন, আল কায়েদা প্রধান আয়মান আল জাওয়াহিরি বহুদিন ধরে বাংলাদেশকে নিয়ে অনেক বক্তব্য দিয়েছে। সম্প্রতি যে ভিডিও বার্তা দেখা যাচ্ছে তা সত্য না মিথ্যা এখনও নিশ্চিতভাবে বলা যায় না। তবে এই বার্তা নতুন নয়, পুরনো। জানুয়ারির মাঝামাঝি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্য থেকেই আল কায়েদা প্রধানের বার্তাটি ছাড়া হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে সম্প্রতি বার্তাটি বাংলাদেশে দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে বর্তমান রাজনৈতিক সহিংসাবস্থায় আল জাওয়াহিরির বক্তব্য প্রচারিত হওয়া একটা আতঙ্ক। এই অবস্থায় এটা কি পূর্বপরিকল্পিত না কাকতালীয়? আন্তর্জাতিক সন্ত্রাস বিভিন্ন সময়ে একটা শক্তিশালী এবং কার্যকর অস্ত্র হিসেবে চিহ্নিত। বিভিন্ন বৈধ বা অবৈধ, গণতান্ত্রিক বা অগণতান্ত্রিক শাসকগোষ্ঠী তাদের নিজস্ব প্রয়োজনে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাস ব্যবহার করে থাকে।

তিনি আরো বলেন, ইতিহাস পর্যালোচনা করলে দেখা যায় প্রাচীন, মধ্য কিংবা আধুনিক যুগেও শাসকরা তাদের নিজের স্বার্থে শত্রুপক্ষ তৈরি করে। এটা তখনই সম্ভব হয় যখন সরকারের বৈধতার ঘাটতি থাকে এবং সেক্ষেত্রে শত্রুর মোকাবিলা করার জন্য নতুন শত্রুর আবির্ভাব ঘটান।

সূত্র: বিডিটুডে ডটকম

Advertisements